Search Any Post Of WizBD.Com
 HomeTech Newsসরকার গ্রামীণফোন ও রবিতে প্রশাসক নিয়োগের জন্য প্রস্তুত রয়েছে

সরকার গ্রামীণফোন ও রবিতে প্রশাসক নিয়োগের জন্য প্রস্তুত রয়েছে

দুই মোবাইল অপারেটর বিটিআরসি-র নিরীক্ষণের সময়সীমার মধ্যে অন্তত আংশিক পরিশোধ করতে ব্যর্থ হলে সরকার গ্রামীণফোন ও রবিতে প্রশাসক নিয়োগ দেওয়ার কথা রয়েছে।

রবিবার এক বৈঠকে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) ১৩,৪৪৫ কোটি টাকার টেলিকম রেগুলেটরের নিরীক্ষণের দাবি আদায়ের জন্য কী করা উচিত তা নিয়ে আলোচনা হয়েছিল।

সভায় সভাপতিত্ব করেন প্রধানমন্ত্রীর আইসিটি উপদেষ্টা সজীব আহমেদ ওয়াজেদ। বিটিআরসির চেয়ারম্যান জহুরুল হক এবং ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তফা জব্বার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

মোস্তফা জব্বার সোমবার বলেছেন, “জিপি ও রবি এই দুই অপারেটর যদি আদালতের নির্দেশ মেনে না নেয় এবং নির্ধারিত সময়ের মধ্যে অর্থ দিতে ব্যর্থ হয়, আমরা ব্যবস্থা নিতে বাধ্য হব। আমাদের আইন প্রাসঙ্গিক আইন অনুযায়ী হবে”।

তিনি বলেন, সরকার এই বিরোধের সুদৃঢ় সমাধানের জন্য এবং তিনি আরও যোগ করেছেন যে দুই অপারেটরকে আইন মেনে চলতে হবে।

বিটিআরসি চেয়ারম্যান সোমবার বলেছেন, কমিশনের নিরীক্ষার দাবি আদায়ের ব্যবস্থা হিসাবে প্রশাসকদের নিয়োগের সম্ভাবনা নিয়ে রবিবার বৈঠকে আলোচনা হয়েছিল।

তিনি বলেছিলেন, “আমরা প্রশাসকদের নিয়োগের প্রক্রিয়া শেষ করেছি। দুই অপারেটর যদি অর্থ প্রদান করতে ব্যর্থ হয়, আমরা প্রশাসকদের নিয়োগের জন্য আমাদের পরিকল্পনা নিয়ে এগিয়ে যাব।”

সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ, ২৪ নভেম্বর গ্রামীণফোনকে বিটিআরসিকে তিন মাসে ২,০০০ কোটি টাকা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে, মোবাইল অপারেটরের কাছ থেকে টেলিকম নিয়ন্ত্রকের মোট নিরীক্ষণের দাবি (বকেয়া হিসাবে) হচ্ছে ১২,৫৭৯ কোটি টাকা।

এই বছরের ৫ জানুয়ারি হাইকোর্ট রবি আজিয়াটা লিমিটেডকে পাঁচটি সমান কিস্তিতে বিটিআরসিকে ১৩৮ কোটি টাকা দিতে বলেছে, মোবাইল অপারেটরের কাছ থেকে টেলিকম নিয়ন্ত্রকের মোট নিরীক্ষার দাবি (বকেয়া হিসাবে) ৮৬৭.২৩ কোটি টাকা।

আগস্টের শেষের দিকে জিপি এবং রবি উভয়ই বিটিআরসির অডিট দাবিকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে আদালতে মামলা করে।

জিপি-র মূল সংস্থা টেলিনর এশিয়াও গত বছরের অক্টোবরে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের কাছে নোটিশ পাঠিয়ে অডিটের বিরোধের বিষয়ে সালিশ চেয়েছিল।

বৈঠক সূত্র এবং বিটিআরসি কর্মকর্তারা বলেছেন, সরকার টেলিযোগাযোগ আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করবে যার মধ্যে লাইসেন্স বাতিলকরণ এবং সংস্থা পরিচালনার জন্য প্রশাসক নিয়োগের অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

বিটিআরসির কর্মকর্তারা বলেছেন, প্রশাসক নিয়োগের সম্ভাবনা বেশি ছিল, কারণ লাইসেন্স বাতিলকরণ উভয় অপারেটরের গ্রাহকদের উপর বিরূপ প্রভাব ফেলবে।

অক্টোবরের শুরুতে, বিটিআরসি জিপি এবং রবিতে প্রশাসক নিয়োগের জন্য টেলিকম মন্ত্রকের অনুমোদন পেয়েছিল তবে অর্থমন্ত্রী এএইচএম মোস্তফা কামাল হস্তক্ষেপ করেছিলেন এবং অপারেটরদের কিছুটা সময় মীমাংসিতভাবে নিরীক্ষণের দাবিটি সমাধান করার অনুমতি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন।

বিটিআরসির একজন কর্মকর্তা বলেছেন, সরকার প্রশাসনিক পদে সবার কাছে গ্রহণযোগ্য বিশিষ্ট ব্যক্তিত্বদের নিয়োগ করবে।

বিটিআরসি’র একজন প্রবীণ কর্মকর্তা বলেছেন, “আইনজীবি, প্রকৌশল ও অর্থ-সংক্রান্ত বিষয়ে প্রশাসকদের সহায়তা করার জন্য আরও তিনজন প্রযুক্তিবিদ নিয়োগ করা হবে।”

সেপ্টেম্বরে, বিটিআরসি জিপি এবং রবির কাছে দুটি কারণ দর্শানোর নোটিশ পাঠিয়েছিল কেন তাদের পাওনা পরিশোধে ব্যর্থতার কারণে তাদের লাইসেন্স বাতিল করা হবে না তা জানতে চেয়ে।

2 weeks ago (7:00 pm) 384 views
Report

About Author (913)

JS Masud
Administrator

Quran is only medicine of heart. and remember Allah is very powerful.

Leave a Reply

You must be Logged in to post comment.

Related Posts

Copyright © WizBD.Com, 2018-2019