Search Any Post Of WizBD.Com
 HomeSEO Tricksএসইও কোন দীর্ঘমেয়াদী প্রক্রিয়া নয়। র‌্যাংকিংয়ে আসার সহজ উপায় রয়েছে

এসইও কোন দীর্ঘমেয়াদী প্রক্রিয়া নয়। র‌্যাংকিংয়ে আসার সহজ উপায় রয়েছে

প্রত্যেকে মনে করে যে এসইও বা সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন একটি দীর্ঘমেয়াদী প্রক্রিয়া। হ্যাঁ আমিও পারসনালি মনে করি যে এসইও দীর্ঘমেয়াদী। তবে অনেক সময় এসইও দীর্ঘমেয়াদী নাও হতে পারে! বছরের পর বছর আর মাসের পর মাস অপেক্ষা না করে মাত্র ৩০ মিনিটেও এসইও করা যায়!! মাত্র ৩০ মিনিটে টপ র‌্যাঙ্ক পাওয়া এমন ওয়েবসাইটও আমি দেখেছি।

এসইও সবসময় আপডেটেড। তাই আজকের প্রক্রিয়া হয়ত এক বছর পর নাও থাকতে পারে তাই প্রতিনিয়ত আপনাকেও আপডেট থাকতে হবে। মাত্র এক বছরে গুগল ৩,২০০ তাদের সার্স অ্যালগরিদম চেঞ্জ করেছে! গুগল সব সময়ই চায় তাদের ব্যবহারকারীদের নতুন তথ্যবহুল ও সঠিক রেজাল্ট জানাতে।


২০১৯ সালের শেরা পাঁচটি এসইও টুলস যা গুগল রেঙ্কিং এ আসতে কাজে আসবে


নতুন তথ্যবহুল ও সঠিক রেজাল্টের জন্য তারা ১০ বছর আগের বা ১০ দিন আগের সাইট বিবেচনা করে না।
এসইও

কিভাবে এসইও বদলেছে?

আপনি যদি ভাল র‍্যাঙ্ক করতে চান তাহলে অবশ্যই আপনাকে অন্য ওয়েবসাইট এর থেকে বেশি তথ্যবহুল ও লং-ফর্ম কন্টেন্ট তৈরি করতে হবে ও লিঙ্ক তৈরি করতে হবে।

তবে র‍্যাঙ্কিং পাওয়ার জন্য আপনার ডোমেইনও বেশ সাহায্য করে। আপনার ডোমেইন টি যদি পুরানো হয় তাহলে র‍্যাঙ্কিং পাওয়ার সম্ভাবনা একটু বেশি তবে গুগল স্পষ্টভাবে বলেছে যে, তারা নতুন বা পুরানো ডোমেইন থাকা আপনার র‍্যাঙ্কিংয়ে প্রভাব ফেলবে না।

তবে বিভিন্ন এসইও এক্সপার্ট এর মতো আমিও মনে করি যে ডোমেইন পুরানো হওয়া একটি বড় ফেক্ট আপনার এসইও এর জন্য।

এবং এটি নিশ্চিত, সেই জিনিসগুলি আজও গুরুত্বপূর্ণ। তবে গুগল একটি ওয়েবসাইটকে র‍্যাঙ্ক করতে তাদের ২০০ টিরও বেশি অ্যালগরিদমে রয়েছে।

৩০ মিনিটের মধ্যে র‍্যাঙ্ক
এই রেজাল্টটি মাত্র ৩০ মিনিটের মধ্যে গুগল সার্চে র‍্যাঙ্গ করেছে
১ঘন্টার মধ্যে সার্চ রেজাল্টে
এই পোস্টটি মাত্র ১ ঘন্টার মধ্যে আমার ফোকাসিং কিওয়ার্ড এর উপর সার্চ রেজাল্টে এসেছে

এই ধরণের জিনিস আগে সম্ভব ছিল না। তাই বুঝাযায় সঠিকভাবে কাজ করলে এসইও এখন দীর্ঘমেয়াদী কোন প্রক্রিয়া নয়। ইউটিউব বা অন্যান্য সার্চ ইঞ্জিনে আপনি চাইলে ২৪ ঘন্টার মধ্যে আপনার কন্টেন্ট র‍্যাঙ্ক করাতে পারেন।


SEO শিখুন সম্পূর্ণ বাংলায়। ৪৫০ টাকা মূল্যের SEO বই নিয়ে নিন সম্পূর্ণ ফ্রিতে আর হয়ে উঠুন আপনিও SEO মাস্টার।


আপনি যদি ইউটিউব এসইও এর কথা বলেন তাহলে ইউটিউব এর এসইও গুগলের অ্যালগরিদম এর চেয়ে কিছুটা আলাদা। ইউটিউবে আপনি যেকোন ভিডিও প্রকাশ করার পর ২৪ ঘন্টার মধ্যে যদি সত্যি ভিডিও খুব ভালোভাবে তৈরি করা হয় তাহলে র‍্যাঙ্ক পাবেন।

ইউটিউব এর ভিডিও র‍্যাঙ্ক করার জন্য আরেকটি বিষয় আপনার লক্ষ রাখতে হবে আর সেটা হচ্ছে ভিডিও কোয়ালিটি। ভিডিও এর কোয়ালিটি যদি খারাপ হয় তাহলে আপনার ভিডিও র‍্যাঙ্ক হতে কষ্ট হবে।

আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে ভিডিও কত বড়। এক রিসার্চে দেখা গেছে যে যত বড় ভিডিও থাকবে সেই ভিডিও ততভালো র‍্যাঙ্ক পাবে। আর যদি শুধু ভিডিও বড় হয় কিন্তু কোন ইনফরমেশন না থাকে তাহলে আপনার ভিডিও র‍্যাঙ্ক করবে না।

আবার যদি আপনি ছোট ভিডিও এর মধ্যে সমস্তকিছু কাভার করতে পারেন তাহলেও আপনার ভিডিও র‍্যাঙ্ক করার পসিবিলিটি বেশি। তাই ইউটিউব ভিডিও তৈরি করতে সবকিছু মাথায় রেখে ভিডিও তৈরি করবেন।

সংক্ষেপে, এসইও এই শব্দটি যতই প্রতিযোগিতামূলক হোন না কেন, মাত্র কয়েক দিনের মধ্যে আপনি ইউটিউবে শীর্ষস্থানীয় স্থান নিতে পারবেন।

আমার মতামত

দেখুন আমি এটা বলছি না যে সব সময় আপনি ২৪ ঘন্টার মধ্যে গুগল সার্চ রেজাল্টে আসতে পারবেন। তবে অন্যরা যখন পেরেছে তখন আপনি কেন নয়? সঠিক কৌশল অনুসরণ করে আপনিও পারবেন সার্চ রেজাল্টে এসে আপনার ওয়েবসাইটের ট্রাফিক বৃদ্ধি করতে।

গুগলের কাছে কোনও নতুন ওয়েবসাইট বা পুরানো আছে তা বিবেচ্য নয়। তারা শুধু দেখে কোয়ালিটিফুল কন্টেন্ট। তাই এখন আপনার প্রতিভা প্রমানের সুযোগ।

6 months ago (1:23 pm) 928 views
Report

About Author (954)

JS Masud
Administrator

Quran is only medicine of heart. and remember Allah is very powerful.

2 responses to “এসইও কোন দীর্ঘমেয়াদী প্রক্রিয়া নয়। র‌্যাংকিংয়ে আসার সহজ উপায় রয়েছে”

  1. Md Baijit Bustami Md Baijit Bustami
    Author
    says:

    Masud vai fb te messege reply den na kno?

Leave a Reply

You must be Logged in to post comment.

Related Posts

Copyright © WizBD.Com, 2018-2019