Search Any Post Of WizBD.Com
 HomeOperator Newsফেসবুক ও গুগলকে প্রায় ৯ হাজার কোটি টাকা দিয়েছে গ্রামীণফোন, রবি ও বাংলালিংক

ফেসবুক ও গুগলকে প্রায় ৯ হাজার কোটি টাকা দিয়েছে গ্রামীণফোন, রবি ও বাংলালিংক

বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন রেগুলেটরি কমিশন (বিটিআরসি) বলেছে, বাংলাদেশের শীর্ষ তিন মোবাইল অপারেটর গ্রামীণফোন, রবি ও বাংলালিংক তাদের পণ্যের বিজ্ঞাপন দিতে গুগল, হোয়াটসঅ্যাপ, ইয়াহু, আমাজন, ইউটিউব, ফেসবুকসহ বিভিন্ন ইন্টারনেট ভিত্তিক প্রতিষ্ঠানকে প্রায় ৮,৭৪৪ কোটিরও বেশি টাকা দিয়েছে।

হাইকোর্টে জমা দেওয়া এক প্রতিবেদনে টেলিকম নিয়ন্ত্রক কমিশন এর অত্যাশ্চর্য চিত্রটি প্রকাশ করে।

প্রতিবেদনটি যৌথ হাইকোর্ট বেঞ্চে বিচারপতি মোঃ মইনুল ইসলাম চৌধুরী ও মোঃ আশরাফুল কামালের কাছে জমা দেওয়া হয়।

বিটিআরসির পক্ষে আইনজীবী একেএম আলমগীর পারভেজ ভূঁইয়া প্রতিবেদনটি জমা দেন ও সরকারের প্রতিনিধি হিসেবে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল তুষার কান্তি রায়।

রিট আবেদনের অন্যতম ব্যারিস্টার হুমায়ুন কবির পল্লব বলেন, বাংলালিংক ২০১১ সাল থেকে ২০১৮ সালের জুন মাস পর্যন্ত ডিজিটাল এজেন্সিগুলিকে তাদের অর্থ প্রধান করেছে, সাথে গ্রামীণফোন ২০১১ থেকে ২০১৮ সালের জুলাই ও রবি ২০১৭ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত অর্থ প্রধান করেছে।

পল্লব আরও বলেন, “বাংলালিংক গুগল, ফেসবুক ও ইয়াহুকে এবং রবি ইমো, গুগল ও ফেসবুককে প্রধান করেছে। আর গ্রামীণফোন গুগল ও ফেসবুককে অর্থ প্রধান করেছে”।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর )ও একই বিষয়ে একটি প্রতিবেদন জমা দিয়েছে, তবে উচ্চ আদালত এতে অসন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন এবং ১৯ ই অক্টোবরের মধ্যে পুনরায় জমা দেওয়ার জন্য বলেছেন।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম সংস্থাগুলি এবং বিদেশী চ্যানেলগুলি বাংলাদেশ থেকে তাদের উপার্জনের উপর ভ্যাট এর আয়তন করতে হবে।

ভ্যাট সংগ্রহ নিশ্চিত করার জন্য এনবিআর আইনগুলি মেনে চলার জন্য অবিলম্বে ভ্যাট নিবন্ধন করানোর জন্য সংস্থাগুলিকে বলেছিল।

আদালত রাজস্ব বোর্ডকে একই ডিজিটাল আউটলেটগুলো থেকে রাজস্ব আদায়ের ক্ষেত্রে তাদের নেওয়া পদক্ষেপগুলিও বিস্তারিতভাবে জানাতে বলেছে।

গত বছরের ১৮ এপ্রিল হাইকোর্ট ফেসবুকসহ সমস্ত ইন্টারনেট-ভিত্তিক এজেন্সিগুলির উপর সম্ভাব্য কর ফাঁকির খুঁজ করতে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছিল।

একই সময়ে, ইন্টারনেট ভিত্তিক প্ল্যাটফর্মের বিজ্ঞাপনগুলি থেকে ডোমেন বিক্রয় এবং লাইসেন্সের ফিগুলি থেকে রাজস্ব আদায়েরও আদেশ দেওয়া হয়েছিল।

অভিযুক্তদের চার সপ্তাহের মধ্যে এই রায়টির জবাব দিতে বলা হয়েছিল। এছাড়াও ফেসবুক সহ সমস্ত ইন্টারনেট ভিত্তিক এজেন্সিগুলির কর ফাঁকি দেওয়ার বিরুদ্ধে ৯ এপ্রিল, ২০১৯ এ একটি রিট দায়ের করা হয়।

রিটে সব ইন্টারনেট-ভিত্তিক প্রতিষ্ঠানকে করের আওতায় আনতে বলা হয়েছিল।

এই রিটটি সুপ্রিম কোর্টে ছয় জন আইনজীবীর দ্বারা দায়ের করা হয়েছিল যথা:- ব্যারিস্টার মোহাম্মদ হুমায়ুন কবির, মোহাম্মদ কাউসার, মোহাম্মদ সাজ্জাদুল ইসলাম, মোহাম্মদ মাজেদুল কাদের এবং অ্যাডভোকেট অপূর্ব কুমার বিশ্বাস।

1 month ago (12:54 am) 492 views
Report

About Author (725)

JS Masud
Administrator

Quran is only medicine of heart. and remember Allah is very powerful.

Leave a Reply

You must be Logged in to post comment.

Related Posts

Copyright © WizBD.Com, 2018-2019