Search Any Post Of WizBD.Com
 HomeNewsকেমন হতে চলেছে এবারের নির্বাচন? কোন পদ্ধতিতে ভোট গ্রহণ করা হবে এবারের নির্বাচনে?

কেমন হতে চলেছে এবারের নির্বাচন? কোন পদ্ধতিতে ভোট গ্রহণ করা হবে এবারের নির্বাচনে?

আসসালামু আলাইকুম
আশাকরি সবাই ভালো আছেন।
সবাই ভালো থাকেন ভালো রাখেন এই প্রত্যাশাই করি সব সময়।
আগামী ৩০ তারিখ জাতীয় নির্বাচন। তাই আজ আপনাদের জন্য নিয়ে আসলাম নির্বাচন সম্পর্কে একটি পোষ্ট।
কেমন হতে চলেছে এবারের নির্বাচন? কোন পদ্ধতিতে ভোট গ্রহণ করা হবে এবারের নির্বাচনে?
বাংলাদেশ জাতীয় নির্বাচন


ধরুন আপনি ভোটকেন্দ্রে গেলেন এবং জানতে পারলেন কেউ আপনার ভোট-টি আগেই দিয়ে দিয়েছে। সে ক্ষেত্রে আপনি কি করবেন।
ভোটের দিনের এমন নানা রকম প্রশ্ন জানতে নিচের অংশটুকু সম্পুর্ন পড়ুন।
প্রথমেই জানিয়ে দেবো ভোটের দিন এর Rules and Dos।

ভোট কেন্দ্রে আপনি কি কি নিতে পারবেন এবং আপনি কি কি নিতে পারবেন না

এক্ষেত্রে নির্বাচন কমিশন বলছে ভোট কেন্দ্রে ভোটাররা শুধু ভোটের স্লিপ নিতে পারবে। যেখানে ভোটারের নাম, কেন্দ্র ও একটি সিরিয়াল নাম্বার দেয়া থাকে।
নির্বাচন কমিশন বাংলাদেশ
অনেকেই ভাবেন জাতীয় পরিচয় পত্র বা স্মার্ট কার্ড ছাড়া ভোট দেওয়া যায় না। এ ধারণা পুরোটাই ভুল।

আপনি চাইলে জাতীয় পরিচয় পত্র রাখতে পারেন তবে সেটা বাধ্যতামূলক নয়।

তবে ভোট কেন্দ্রে মোবাইল ফোন, ধাতব পদার্থ, আগ্নেয়াস্ত্র বা ধারালো কোন জিনিস নেয়া সম্পূর্ণ নিষেধ।

তবে মোবাইল যদি নিতেই হয় তাহলে ভোট দেওয়ার সময় সেটা সম্পূর্ণ বন্ধ করে রাখতে হবে।

ভোট কেন্দ্রে ছবি বা সেলফি তোলা অথবা চেকিং দেওয়া থেকে বিরত থাকার জন্য নির্বাচন কমিশন থেকে বলা হয়েছে।

এবার আসি পোশাক-আশাকে

ভোটকেন্দ্রে যাওয়ার কোনো আলাদা ড্রেস নেই।

আপনি আপনার পছন্দমত পোষাক পড়তে পারেন তবে যদি আপনি মেকআপ করে থাকেন তাহলে পরিচয় শনাক্তের জন্য পোলিং এজেন্টকে আপনার একবারের জন্য হলেও মুখ দেখাতে হতে পারে।

ভোটকেন্দ্রে শিশুদের না নেওয়ার অনুরোধ করেছে নির্বাচন কমিশন

তবে অন্তঃসত্ত্বা নারী, অন্ধ, প্রতিবন্ধী বা প্রবীণ ভোটার তাদের সঙ্গে একজন সহায়ক ব্যক্তিকে রাখতে পারবেন।

এবার আসি ভোটকেন্দ্রে গিয়ে যদি দেখেন কেউ আপনার ভোটটি আগেই দিয়ে দিয়েছে তাহলে কি করবেন?

তাহলে হতাশ হওয়ার কোনো কারণ নেই!

কেননা নির্বাচন কমিশন বলছে আপনি যদি আপনার ভোটার স্লিপ বা জাতীয় পরিচয় পত্র দেখিয়ে অথবা আঙুলের ছাপ দিয়ে নিশ্চিত করতে পারেন তাহলে অবশ্যই আপনার ভোট দেওয়া হবে!

প্রিজাইডিং কর্মকর্তা তার সই করা ব্যালট পেপারে আপনার সিল নিয়ে সেটা নিজের কাছে রেখে দেবেনন।

একে বলা হয় টেন্ডার ভোট যেটা বাক্সে ফেলার না হলেও গণনা করা হয়।

এবার জানিয়ে দেব ভোট দেওয়ার সাধারণ কিছু নিয়ম কানুন

প্রথমেই আপনার স্লিপ/জাতীয় পরিচয়পত্র কর্মরত প্রিজাইটিং কর্মকর্তাকে দেখান

তিনি আপনার সিরিয়াল নাম্বার দেখে ওই কেন্দ্রের ভোটার তালিকা থেকে আপনাকে সনাক্ত করবেন।

এখানে প্রার্থীর এজেন্টরা বলবেন এই ভোটারদের ব্যাপারে তাদের কোন আপত্তি নেই।

তখন সহকারী প্রিজাইডিং কর্মকর্তা আপনার জন্য একটা ব্যালট পেপার ইস্যু করবেন।

পোলিং কর্মকর্তারা সেই পেপারে আপনার আঙুলের ছাপ নেবেন এরপর তিনি আপনার আঙুলে অমোছনীয় কালি চিহ্ন এঁকে দেবেন এবং একটি সিল মহর দেবেন।

সেই সিল ও ব্যালট পেপার নিয়ে গোপন কক্ষে গিয়ে আপনি আপনার পছন্দমত প্রতীকের ওপর সিল বসিয়ে নিবেন এবং এমন ভাবে এমন ভাবে কাগজটা ভাঁজ করবেন যেন সিল এর রং অন্য কোথাও না লাগে।

কেননা ব্যালট পেপারে কালি ছড়িয়ে পড়লে বা অন্য কিছু লিখলে ভোট বাতিল হয়ে যায়।

এরপর ভাঁজ করা ব্যালট পেপার টি কেন্দ্রে কর্মরত প্রিজাইডিং অফিসারের সামনে থাকা বক্সে ফেলতে হবে।

তারপর সীল মহরটি ফেরত দিয়ে আপনি চলে যাবেন।

এবার কথা বলি ইভিএম দিয়ে কিভাবে ভোট দেবেন?

এবারে দেশের ছয়টি আসনে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন ইভিএমের মাধ্যমে ভোট গ্রহণ করা হবে বলে জানিয়েছে নির্বাচন কমিশন!

ইভিএমের মাধ্যমে ভোট দেয়া আসলে খুব সহজ!

প্রথমে প্রিজাইডিং অফিসার আপনার আঙ্গুলের ছাপ অথবা আপনার পরিচয় নিশ্চিত করে পারমিশন স্লিপ দেবেন।

তারপর গোপন কক্ষে থাকা ইভিএমে আপনার পছন্দের প্রতীক এর পাশের বাটনে এবং পরে নিচে সবুজ রঙের কনফার্ম বাটনটি চেপে ভোট দেবেন।

খুব সহজ তাই না?

10 months ago (12:37 pm) 806 views
Report

About Author (767)

JS Masud
Administrator

Quran is only medicine of heart. and remember Allah is very powerful.

Leave a Reply

You must be Logged in to post comment.

Related Posts

Copyright © WizBD.Com, 2018-2019