Search Any Post Of WizBD.Com
 HomeMotivational PostCreativity – ভাই পোস্ট কিভাবে করবো টপিকই তো নাই! এই পোস্টটি দেখুন

Creativity – ভাই পোস্ট কিভাবে করবো টপিকই তো নাই! এই পোস্টটি দেখুন

Tagline: ভাই পোস্ট কিভাবে করবো টপিকই তো নাই, পাবলিসিটি ব্যাপার না আমাদের Content লাগবে Content, কিসের Content? Creativity নাই মানে Content নাই, Content নাই মানে Publicity নাই আর Publicity না থাকলে সাইট দিয়ে কি করবো?

 

Hey guys, it is Shaon representing to you the best online based learning place WizBD.com

Okay, তো আজকের পোস্টের টপিক হচ্ছে “টপিক নাই”। শুনতে অদ্ভুত লাগলেও সম্পূর্ণ পোস্টটা ধৈর্য সহকারে পড়লে বিষয়টা আশা করি বুঝতে পারবেন।

প্রথমে আমি কথা বলতে চাই Creativity নিয়ে।
Creativity? এটা আবার কি? খায় নাকি মাথায় দেয়?

Well, এটা এমন একটা জিনিস যা দিয়ে খাওয়া দাওয়া বা মাথায় কিছু দেওয়া থেকে শুরু করে পৃথিবীর সকল কাজ করা সম্ভব। কিভাবে? বলছি থামুন…

তো চলুন জেনে নেই এই Creativity টা আসলে কি?

পৃথিবীতে কোনো কিছুই অফুরন্ত নয়। সবকিছুরই একটা শেষ আছে। কিন্তু এই Creativity এমন একটা জিনিস যার কোনো শুরু বা শেষ নেই। অর্থাৎ এটি Infinity। কিন্তু মানুষ Limited জিনিসগুলো পেয়ে Unlimited এই জিনিসটাকেই দিন দিন হারিয়ে ফেলছে। একবার ভেবে দেখুন তো যে এই বিশাল পৃথিবীতে কি পরিমাণ পানি আছে মানুষ তাও পরিমাপ করতে পারে কিন্তু এই Creativity পৃথিবীতে ঠিক কতটুকু আছে তা এখনও জানা যায় নি। তাহলে এটা কত বড় একটা জিনিস? আমার মনে হয় না যে এর চেয়ে আর কোনো ভালো উদাহারণ আছে। তাহলে কেন আমরা কোনো কাজ করতে গেলে বা কোনো Problem solve করতে গেলে বুদ্ধি পাই না?

আসলে Creativity টা এমন কিছু না যে কোনো নির্দিষ্ট স্থানে গেলে তা পাওয়া যাবে। এটার Source যদি বলতেই হয় তাহলে আমি বলবো যে মানুষ নিজেই এটার Source। কেননা মানুষের অভিজ্ঞতা থেকেই শুধুমাত্র এই Creativity তৈরী করা সম্ভব।

কিভাবে Creative হব?

Well, এটা সম্পূর্ণ Meaningless একটা প্রশ্ন বলে আমি মনে করি। কারণ আপনি যদি মানুষ হয়ে থাকেন তাহলে অবশ্যই আপনার ভেতরে Creativity রয়েছে। মূলত সৃষ্টিকর্তা আমাদের সবাইকে সমান পরিমাণে Creativity দিয়ে সৃষ্টি করেছেন। তবে সেটা কি পরিমাণে তা তিনি ছাড়া আর কেও জানে না। তবে আসল সমস্যাটা হলো আমরা এই মহামূল্যবান জিনিসটাকে সঠিক সময় সঠিকভাবে কাজে লাগাতে পারি না। আমরা যদি কিছু সফল ব্যাক্তিত্বের দিকে তাকাই তাহলে দেখতে পাবো যে তাদের সফল হওয়ার পেছনে মূল মন্ত্র হলো তাদের Creativity।

Google, Microsoft এমনকি Facebook এর মত কম্পানিগুলোর উঠে দাঁড়ানোর পেছনে মূল রহস্য হলো এই Creativity। একটু চিন্তা করলে বুঝতে পারবেন যে এরা শুধু টাকার জোরে বড় হয় নি বা অন্য কারও কপি করে বড় হয় নি। এরা সবসময় অন্যদের থেকে আলাদা কিছু করতে চেয়েছে তাই তারা তাদের Creativity-র জোরে এতদূর আসতে পেরেছে। তাই তারা যদি পারে আপনি কেন পারবেন না যেখানে আপনার তাদের মতই সমান Creativity রয়েছে?

একটা ছোট গল্প শুনে আসি চলুন…

এক জায়গায় একজন বৃদ্ধ লোক বাস করতেন। তার আপন জন বলতে তার এক ছেলে ছাড়া আর কেও ছিলো না। এবং দুঃখজনকভাবে তার সেই ছেলেটি কোনো এক কারণে কারাগারে ছিলো। তো সেই লোকের জীবীকা নির্বাহের জন্য কোনো রাস্তা না থাকায় তিনি চিন্তা করলেন যে তার বাড়ির পিছনের জায়গাটায় তিনি আলুর চাষ করবেন। কিন্তু সেই জমির মাটি অনেক শক্ত ছিলো যার কারণে আলু চাষের জন্য সেই জমি ওই লোকটির একার পক্ষে খনন করা সম্ভব ছিলো না। তাই তিনি হতাশ হয়ে তার ছেলের কাছে একটা চিঠি লিখে তার অনুভুতি তার ছেলের সাথে Share করলেন। তার ছেলেটি সেই চিঠি পড়লো এবং উত্তরে সে তাকে ওই জমি খুঁড়তে নিষেধ করলো এবং বললো যে সে তার খুন করার করা অস্ত্র-পাতি সেই জমিতে পুঁতে রেখেছে। তো যখন সে তার বাবার কাছে সেই চিঠিটা পাঠালো তখন জেল কর্তৃপক্ষ চিঠিটা দেখলো এবং সেখানে অস্ত্র উদ্ধারের জন্য

গেলো। কিন্তু তারা অনেক খোঁড়াখুঁড়ির পরেও কোনো অস্ত্র পেলো না। পরে সেই লোকটা আবার তার ছেলের কাছে ওই ঘটনার কথা জানিয়ে আবার একটা চিঠি লিখলো। এবং এই চিঠির উত্তরে তার ছেলে তাকে জেল কর্তৃপক্ষের খুঁড়ে দেওয়া ওই জমিতে তাকে আলু চাষ করতে বললো। তো এই গল্পটা আমার কাছে এই জন্য ভালো লেগেছে যে এখানে খুব Short একটা পরিস্থিতির মধ্যেও অনেক বড় একটা Creativity দেখানো হয়েছে।

এখানে যেই Concept টাকে ইঙ্গিত করা হয়েছে সেটা হলো Out of box চিন্তা করা। অর্থাৎ সেই ছেলেটা যদি Limited চিন্তা করতো যে কখন সে জেল থেকে ছাড়া পাবে এবং তার বাবাকে সাহায্য করতে পারবে তাহলে কখনোই এটা সম্ভব হতো না। তাই সে চিন্তা করলো যে কিভাবে ওই অবস্থা থেকেই কাজ করা যায়। আমরা যখন কোনো Business বা কাজ শুরু করতে যাই তখন অধিকাংশ ক্ষেত্রেই আমরা Common খুঁজি যে অন্যরা কি করছে।

ধরুন, আপনি একটা দোকান খুলতে চান তখন আপনার মাথায় Automatically কয়েকটা Idea চলে আসবে যেমনঃ Fast food, cosmetics কিংবা ধরুন ওষুধের দোকান। কিন্তু একবারও কি চিন্তা করে দেখেছেন যে এগুলো Common topic এর দোকান খোলার পর আপনার লাভটাও কিন্তু অন্যদের মতই হবে। একটা উদাহারণ দিয়ে একটু বুঝিয়ে বলি। ধরুন, আপনার এলাকায় একটা মুদির দোকান আছে এবং সেখানে দিনে গড়ে ১০ জন Customer আসে। এখন আপনি যদি সেখানে আরেকটা মুদির দোকান খুলে বসেন তাহলে সেখানকার ১০ জন Customer এর মধ্যে থেকে গড়ে আপনি ৫ জন Customer পাবেন।এবং অন্য মুদি ব্যাবসায়ী অন্য ৫ জন Customer পাবে। এখন চিন্তা করে দেখুন যে আপনি নিজে তার মত Same business করে নিজে তো loss খেলেনই আবার আপনি তার ৫ জন Customer ও কমিয়ে দিলেন। এতে আপনাদের দুজনেরই ক্ষতি হলো। তাই আমাদের উচিত Common না খুঁজে একটু Uncommon ভাবে Out of box চিন্তা করা উচিত ওই বৃদ্ধ লোকটির ছেলের মত। আপনার এলাকায় যদি মুদির দোকান থাকে তাহলে আপনিও সেই একই কাজ না করে লোক-জনকে অন্য কোন Service দিন যাতে সেই ১০ জন Customer ই মুদির বাজার ছাড়াও অন্য প্রয়োজনে আপনার দোকানটিতেই যেন যায়।

কোন ব্যাবসাটি লাভজনক হবে এটা বোঝার সবথেকে Smart এবং কার্যকরী উপায় হলো মানুষের সমস্যা খোঁজা। আপনাকে দেখতে হবে, শুনতে হবে যে মানুষ কি নিয়ে কথা বলছে এবং কী কী সমস্যার কথা বলছে। আপনি যদি তাদের সমস্যাটি খুঁজে সবাইকে তার সমাধান দিতে পারেন তাহলে আপনি যেকোনো কিছুতেই লাভবান হতে পারবেন।

কিছুক্ষণ আগে আমার এক বড় ভাই আমাকে বললো যে তিনি নাকি পোস্ট করার জন্য টপিক পাচ্ছেন না। আমি এটা ভেবে অবাক হলাম যে কোনো বিষয়ে একটা Article লেখার জন্য আবার টপিকের দরকার হয়? তারপরে আবার মনে করলাম যে আমিও একসময় পোস্ট করার জন্য এরকম টপিক খুঁজতাম। এরকমটা হয় কারণ আমরা সবসময় Limited চিন্তা করি। আমি আগে ভাবতাম যে সাইটে আমাকে শুধু Tech related পোস্ট করতে হবে। তার জন্য আমি পোস্ট করার জন্য ভালো কোনো Topic পেতাম না। কিন্তু তারপরে আমি বুঝতে পারলাম যে আমাকে শুধু Tech related পোস্টের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকলে চলবে না বর‌ং আলাদা কিছু করতে হবে। তাই আমি তারপর থেকে বিভিন্ন Motivational post, story এবং মনে যাই আসে আমি তাই শেয়ার করতে শুরু করি। ফলে এখন আমাকে আর আগের মত টপিক ঠিক করে পোস্ট লিখতে হয় না। বরং আমি প্রথমে Dashboard এ ঢুকে তারপর আশেপাশে তাকিয়ে দেখি যে কি নিয়ে পোস্ট করা যায়। এমনকি এই পোস্টটি আমি কোনো টপিক ঠিক করে লিখি নি তবুও পোস্টটিতে প্রায় ১০০০+ Word লেখা হয়ে গেছে। এর কারণ একটাই যে আমি এখন Out of box চিন্তা করতে পারি। যার কারণে এই যে টপিক নেই এটাও আমার কাছে একটা টপিক।

তো আশা করি বুঝতে পরেছেন যে কিভাবে Out of box চিন্তা করার মাধ্যমে নিজের Creative চিন্তা-ধারাকে আরেকটু বাড়ানো যায়। আমার এই স্বল্প জ্ঞানের আলোকে আপনাদের কতটুকু শেখাতে পেরেছি জানি না। তবে আমার পোস্টটি যদি আপনাদের একটুও উপকারে এসে থাকে তাহলে কমেন্ট করে জানাবেন কেমন হলো এবং আপনার বন্ধুদের সাথে Share করতে ভুলবেন না।

 

পড়াশোনা আর বাড়তি কিছু কাজের চাপে যদিও উইজবিডিতে বেশ কিছুদিন যাবৎ পোস্ট করা হয় নি তবুও আশা করছি যে রমজান মাসের এই ফাঁকা সময়টাতে আপনাদের সাথে থেকে নিয়মিত পোস্ট করে যেতে পারবো।

 

আর আমার কথা-বার্তায় আমি যদি ভুল কিছু বলে থাকি তাহলে Please কমেন্টে টাইপ করে ঠিক করে দিবেন যাতে আমরা সবাই একসাথে ভালোভাবে বুঝতে পারি, শিখতে পারি এবং ভালো মানুষ হিসেবে গড়ে উঠতে পারি।

That’s all for today. See you in the next post. Till then take care.
It is Shaon proudly publishing the post in WizBD… 🙂

7 months ago (7:52 pm) 1020 views
Report

About Author (28)

Rashadul Islam Shaon
Editor

Email | Facebook | Messenger

 

2 responses to “Creativity – ভাই পোস্ট কিভাবে করবো টপিকই তো নাই! এই পোস্টটি দেখুন”

  1. RAKIBUL49 RAKIBUL49
    Author
    says:

    Goooooooooooooooooood bro.শান্তনা পাইলাম

Leave a Reply

You must be Logged in to post comment.

Related Posts

Copyright © WizBD.Com, 2018-2019