জেনে নিন শবে কদরের তাৎপর্য। – WizBD.Com
Search Any Post Of WizBD.Com
 HomeIslamic Postজেনে নিন শবে কদরের তাৎপর্য।

জেনে নিন শবে কদরের তাৎপর্য।

আমাদের সামাজে “লাইলাতুল কদর বা শবে কদর” ২৭ রমজানেই পালন বা আদায় করা হয়। আমি আমাদের এই সংস্কৃতির সাথে এক নই। যেখানে আমাদের আলেম সামাজ মানহান, ভিন্ন, দল, গোত্র নিয়ে ব্যাস্ত, একে অন্যের পক্ষে যুক্তি এবং নিজেদের সঠিক প্রমান করাই উদ্দশ্য, সেই তারাও এ মহামুল্যবান রজনির ইবাদত নিয়ে উদাসীন। মহামুল্যবান রজনির ইবাদতের কথা, সাধারন মুসল্লিদের জানাচ্ছেন না অথবা সঠিক ধারনাও দিচ্ছেন না।
যেখানে রাসুল সোঃ জানতেন রমজানের শেষ দশকে “লাইলাতুল কদর বা শবে কদর ” কিন্তু কবে তার নিদৃষ্ট দিন তাকে ভুলিয়ে দেওয়া হয়েছিল।
রাসুল সোঃ, সাহাবায়ে কেরাম এমন কি বর্তমান আরব দেশগুলাও রমজানের শেষ দশকে “লাইলাতুল কদর বা শবে কদর ” এর সালাত আদায় করেন, ইবাদত বন্দেগি করেন। সেখানে আমরা কি করে সিয়র হলাম যে ২৭ রমজানই হল “লাইলাতুল কদর বা শবে কদর” ???
এটা কি রাসুল সোঃ এর সুন্নাহ বিরোধী নয়??
হাদীসে উল্লেখ আছেঃ
মূসা (রহঃ), আবূ সালামা (রাঃ) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমি আবু সায়িদ খুদরি (রাঃ) এর নিকট উপস্থিত হয়ে বললাম, আমাদের খেজুর বাগানে চলুন, (হাদিস সংক্রান্ত) আলাপ আলোচনা করব। তিনি বেরিয়ে আসলেন। আবু সালামা (রাঃ) বলেন, আমি তাকে বললাম, লাইলাতুল কদর সম্পর্কে নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম থেকে যা শুনেছেন, তা আমার কাছে বর্ণনা করুন। তিনি বললেন, রাসুল (সোঃ) রমজানের প্রথম দশ দিন ইতিকাফ করলেন। আমারও তাঁর সঙ্গে ইতিকাফ করলাম। জিবরাঈল (আলাইহি ওয়াসাল্লাম) এসে বললেন, আপনি যা খোঁজ করছেন, তা আপনার সামনে রয়েছে। এরপর তিনি মধ্যবর্তী দশ দিন ই’তিকাফ করলেন, আমরাও তাঁর সঙ্গে ই’তিকাফ করলাম। পুনরায় জিবরাঈল (আলাইহি ওয়াসাল্লাম) এসে বললেন, আপনি যা খোঁজ করছেন, তা আপনার সামনে রয়েছে। এরপর রমজানের বিশ তারিখ সকালে নবী (স) খুতবা দিতে দাঁড়িয়ে বললেন, যারা আল্লাহর নবী (সোঃ) এর সঙ্গে ই’তিকাফ করেছেন, তারা যেন ফিরে আসেন (আবার ইতিকাফ করার জন্য) কেননা, আমাকে স্বপ্নে লাইলাতুল কদর অবগত করানো হয়েছে। তবে আমাকে তা (নির্ধারিত তারিখটি) ভুলিয়ে দেওয়া হয়েছে। নিঃসন্দেহে তা শেষ দশ দিনের কোন এক বেজোড় তারিখে। স্বপ্নে দেখলাম যেন আমি কাদা ও পানির উপর সিজদা করছি। তখন মসজিদের ছাদ খেজুরের ডাল দ্বারা নির্মিত ছিল। আকাশ ছিল পরিষ্কার, আমরা আকাশে কোন কিছুই (মেঘ) দেখিনি, এক খন্ড হালকা মেঘ আসল এবং আমাদের উপর (বৃষ্টি) বর্ষিত হল। নবী (সোঃ) আমাদের নিয়ে সালাত আদায় করলেন। এমন কি আমি রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর কপাল ও নাকের অগ্রভাগে পানি ও কাঁধার চিহ্ন দেখতে পেলাম। এভাবেই তাঁর স্বপ্ন সত্যে পরিণত হল। (সহীহ বুখারী) আয়িশা (রাঃ) হতে বর্ণিত। তিনি বলেন, আল্লাহর রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম রমজানের শেষ দশকে ইতিকাফ করতেন এবং বলতেনঃ তোমরা রমজানের শেষ দশকে লাইলাতুল কদর অনুসন্ধান কর। (সহীহ বুখারী) আবূ নু’মান (রহঃ), ইবনু উমর (রা) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর সময়ে আমি (এক রাতে) স্বপ্নে দেখলাম যেন আমার হাতে একখন্ড মোটা রেশমী কাপড় রয়েছে এবং যেন আমি জান্নাতের যে কোন স্থানে যেতে ইচ্ছা করছি। কাপড় (আমাকে) সেখানে উড়িয়ে নিয়ে যাচ্ছে। অপর একটি স্বপ্নে আমি দেখলাম, যেন দু’জন ফিরিশতা আমার কাছে এসে আমাকে জাহান্নামের দিকে নিয়ে যেতে চাচ্ছেন। তখন অন্য একজন ফিরিশতা তাঁদের সামনে এসে বললেন,তোমার কোন ভয় নেই। (আর ঐ দুই জনকে বললেন) তাকে ছেড়ে দাও। (উম্মুল মুমিনীন) হাফসা (রা) আমার স্বপ্নদ্বয়ের একটি রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর নিকট বর্ণনা করলে তিনি বললেনঃ আবদুল্লাহ্ (রাঃ) কত ভাল লো্ক! যদি সে রাতের বেলা সালাত (তাহাজ্জুদ) আদায় করত। এরপর থেকে আবদুল্লাহ্ (রাঃ) রাতের এক অংশে সালাত আদায় করতেন। সাহাবীগণ রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর নিকট (তাঁদের দেখা) স্বপ্ন বর্ণনা দিলেন। লাইলাতুল কদর রমজানের শেষ দশকের সপ্তম রাতে। তখন রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বললেনঃ আমি মনে করি যে, (লাইলাতুল কদর শেষ দশকে হওয়ার ব্যাপারে) তোমাদের স্বপ্নগুলোর মধ্যে পরস্পর মিল রয়েছে। কাজেই যে ব্যাক্তি লাইলাতুল কদরের অনুসন্ধান করতে চায় সে যেন তা (রমজানের) শেষ দশকে অনুসন্ধান করে। (সহীহ বুখারী) আবূ সাঈদ আল-খুদরী (রাঃ) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, আমরা রাসুল(স) এর সাথে রমযান মাসের মধ্যম দশকে ইতিকাফ করেছিলাম। তিনি বলেনঃ আমাকে লাইলাতুল কদর দেখানো হয়েছিল; পরে তা আমাকে ভুলিয়ে দেয়া হয়েছে। অতএব তোমরা রমজান মাসের শেষ দশকের বেজোড় রাতসমূহে তা অনুসন্ধান করো। (সহীহ আবু দাউদ, বুখারী, মুসলিম) আবদুল্লাহ ইবনু ইউসুফ (রহঃ), ইবনু উমর (রা) থেকে বর্ণিত যে, নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর কতিপয় সাহাবীকে স্বপ্নযোগে রমযানের শেষের সাত রাতে লাইলাতুল কদর দেখানো হয়। (এ কথা শুনে) রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বললেন: আমাকেও তোমাদের স্বপ্নের অনুরূপ দেখানো হয়েছে। (তোমাদের দেখা ও আমার দেখা) শেষ সাত দিনের ক্ষেত্রে মিলে গেছে। অতএব যে ব্যাক্তি এর সন্ধান প্রত্যাশী, সে যেন শেষ সাত রাতে (তা) সন্ধান করে। (সহীহ বুখারী) মুহাম্মাদ ইবনুল মূসান্না (রহঃ), উকবা ইবনু হুরায়স (রহ) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেনঃ আমি ইবনু উমর (রাঃ) কে বলতে শুনেছি রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেনঃ তোমরা রমযানের শেষ দশদিনে কদরের রাত অনুসন্ধান কর। তোমাদের কেউ যদি দূর্বল অথবা অপারগ হয়ে পরে, তবে সে যেন শেষ সাত রাতে অলসতা না করে। (সহীহ মুসলিম)

4 weeks ago (8:39 am) 366 views

About Author (2)

Author

This author may not interusted to share anything with others

3 responses to “জেনে নিন শবে কদরের তাৎপর্য।”

Leave a Reply

You must be Logged in to post comment.

Related Posts

Copyright © WizBD.Com, 2018