Search Any Post Of WizBD.Com
 HomeFreelancingযেভাবে শুরু করতে পারেন অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং

যেভাবে শুরু করতে পারেন অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং

বর্তমানে ইন্টারনেট থেকে ঘরে বসে প্যাসিভ ইনকাম করার সব থেকে জনপ্রিয় এবং সবার কাছে অত্যন্ত প্রিয় একটি পেশা হলো অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং।এই এফিলিয়েট মার্কেটিং করে ঘরে বসে এখন লাখ লাখ টাকা ইনকাম করছে বিভিন্ন তরুণ-তরুণীরা।কোনো বিনিয়োগ করতে হয় না,পেমেন্ট নিয়ে কোনো ঝামেলা নেই ,আবার একবার রেফার করলে যত বিক্রি তত মুনাফা।এইসব সুবিধার কারণে সবাই এই কাজটিকে নিজের পেশা হিসেবে বেছে নিয়েছে অনেকেই।আর তাই আজ আমি এই এফিলিয়েট মার্কেটিং কিভাবে শুরু করতে পারেন, কিভাবে আপনি এফিলিয়েট নেটওয়ার্ক থেকে রেফারেল লিঙ্ক নিয়ে মার্কেটিং করতে পারেন তা আলোচনা করবো। তো চলুন কথা না বাড়িয়ে শুরু করা যাক :-

১. প্রথমেই আপনাকে এমন একটি নিস বা টপিক বেছে নিতে হবে যেটাতে আপনার নিজের আগ্রহ আছে ,আপনার নিজের যথেষ্ট জ্ঞান আছে এবং সাথে মার্কেটে অনেক চাহিদা আছে।এমন কিছু বেছে নিবেন না যেটায় আপনার কোনো বাস্তব জ্ঞান বা অভিজ্ঞতা নেই।এখন টপিক বাছাই করার পর আপনাকে সেই টপিকের ওপর মার্কেট বিশ্লেষণ করতে হবে,মার্কেটে চাহিদা কেমন যাচাই-বাছাই করতে হবে।

২. আপনার টপিক বাছাই হয়ে গেলে এরপর সেই টপিক এর সাথে সম্পৃক্ত কিছু প্রোডাক্ট নির্বাচন করুন। প্রোডাক্ট নির্বাচন করার সময় কিছু বিষয়ের উপর আপনার অবগত থাকতে হবে
১. এমন কিছু প্রোডাক্ট আপনি বাছাই করুন যার বিক্রি নিয়মিতভাবে হয়,
২. যার মূল্য স্বাভাবিকের নাগালের মধ্যে এবং
৩.যার কমিশন রেট সন্তোষজনক।

প্রোডাক্ট বাছাই হয়ে গেলে সেই প্রোডাক্ট এর ওপর মার্কেট বিশ্লেষণ করা লাগবে।বিশ্লেষণ করার ফলে আপনি মার্কেটপ্লেসে বিভিন্ন প্রোডাক্টের চাহিদা এবং পূর্বে বিক্রয়ের বিস্তারিত জানতে পারবেন।এমন কিছু বাছাই করবেন না যা আপনি নিজে হলেই কিনতেননা। নির্বাচিত প্রোডাক্টগুলোর রেফারেল লিঙ্ক সংগ্রহ করুন।

৩. এরপর আপনি আপনার সেই সংগৃহিত রেফারেল লিংক প্রমোট করার জন্য একটি ওয়েবসাইট তৈরি করুন।এই কাজটি নতুনদের জন্য খুবই ঝামেলাপূর্ণ। তাই আপনারা ওয়ার্ডপ্রেসে ফ্রি ওয়েবসাইট বানাতে পারেন। এমনকি Google Blogger হতে ফ্রি ব্লগ বানিয়েও কাজ করতে পারেন।

৪. এবার আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইটে আপনার টপিক বা Niche সম্পৃক্ত এমন কিছু কন্টেন্ট বা আর্টিকেল পোষ্ট করুন যাতে যেসব ভিজিটর এই প্রোডাক্ট খুঁজছে তারা সহজেই প্রোডাক্ট সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারে । আপনার কন্টেন্ট বা আর্টিকেলের মাঝে একটি উপযুক্ত জায়গা দেখে আপনার অ্যাফিলিয়েট লিঙ্কটি বসিয়ে দিন। একটি আর্টিকেলে একটির বেশি অ্যাফিলিয়েট লিঙ্ক বসবেন না। এখন যখনই কোনো ভিজিটর আপনার ওয়েবসাইেট কোনো নির্দিষ্ট আর্টিকেল পড়বে এবং সেই আর্টিকেলের রেফারেল লিঙ্কে ক্লিক করে প্রোডাক্টের সেলস পেইজ থেকে কিছু কিনবে, সেই সেল থেকে আপনি কিছু কমিশন পাবেন।

৫. যখন আপনার ওয়েবসাইট এ ভিজিটর আস্তে আস্তে বাড়তে থাকবে তখন আপনার ওয়েবসাইট বা ব্লগকে প্রমোট করার ব্যবস্থা নিন। কারণ প্রমোট করার মাধমে আপনার ওয়েবসাইট এর ভিজিটর দ্বিগুন হারে বাড়তে থাকবে।আর আপনার ওয়েবসাইটে যত বেশি মানুষের ভিড় থাকবে , আপনার অ্যাফিলিয়েট লিঙ্ক থেকে সেলস এর সম্ভাবনা তত বাড়বে। আপনার ওয়েবসাইটের মার্কেটিং এর জন্য এসইও, পেইড অ্যাডভার্টাইজিং বা স্যোসাল মিডিয়ার সাহায্য নিতে পারেন।

ইনশাল্লাহ উপরোক্ত বিষয়গুলো আপনি যদি ফলো করেন তাহলে আমার মতো আপনিও একদিন একজন দক্ষ এফিলিয়েট মার্কেটার হতে পারবেন।

5 months ago (8:43 pm) 576 views
Report

About Author (106)

Author

নিজে শিখুন এবং অন্যকে শিখতে সাহায্য করুন

Leave a Reply

You must be Logged in to post comment.

Related Posts

Copyright © WizBD.Com, 2018-2019