Search Any Post Of WizBD.Com
 HomeFreelancingফ্রিল্যান্সিং করে কত টাকা আয় করা যায়? কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং করবেন সবকিছু

ফ্রিল্যান্সিং করে কত টাকা আয় করা যায়? কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং করবেন সবকিছু

আসসালামু আলাইকুম
আশাকরি সবাই ভালো আছেন
সবাই ভালো থাকেন ভালো রাখেন এই প্রত্যাশাই করি সব সময়।

আকজের এই পোস্টের মাধ্যমে আমি মানুষের কিছু কৌতূহল মেটানোর চেষ্টা করছি।
ফ্রিল্যান্সিং করে কত টাকা আয় করা যায়?
২০১৯ সালে ফ্রিল্যান্সিং করে কতকটা আয় করা যাবে

আপনি যখন থেকে ইন্টারনেট ব্যবহার করছেন তখন থেকে এখন পর্যন্ত ফ্রিল্যান্সিং বা ফ্রিল্যান্সার এই কথাটির সাথে হয়ত পরিচিত।

অনেকেই হয়তো এই কথাটি এখন প্রথম শুনছেন পার হন অনেকেই হয়তো এই কথাটির সাথে গভীরভাবে পরিচিত।

ফ্রিল্যান্সিং করে আয় করার জন্য আপনাকে প্রথমে জানতে হবে ফ্রিল্যান্সিং ব্যাপারটা কি এবং কিভাবে করে তো চলুন প্রথমেই আমরা পরিচিত হই

ফ্রিল্যান্সিং কি

ফ্রিল্যান্সিং হচ্ছে নিজের ইচ্ছে মত পেশা বা স্বাধীন পেশা।

এই পেশায় আপনাকে কারো আন্ডারে কাজ করতে হবে না বরং নিজের ঘরে বসে নিজের মা বাবা বউ বাচ্চার মুখ দেখে ফ্যানের বাতাস খেয়ে নিজের ইচ্ছামত টাইমে কাজ করতে পারবেন।

এ কাজের জন্য আপনাকে কারো কাছে জবাবদিহি হতে হবে না। আবার আপনি চাইলে যেকোন কোম্পানির আন্ডারে কাজ করতে পারবেন। সেটা হউক দেশি অথবা বিদেশি কোম্পানি।

অন্য কেউ আপনাকে কিছু কাজ দেবে এবং আপনাকে সেই কাজটি করে দিতে হবে এবং এর বিনিময়ে আপনি টাকা পাবেন।

মূলত ফ্রিল্যান্সিং এর সংজ্ঞা হচ্ছে “ঘরে বসে নিজের ইচ্ছামত সময়ে অনলাইনের মাধ্যমে অন্যের কাজ করে দেওয়াকে ফ্রিল্যান্সিং বলে”।

তো এখন কথা হচ্ছে কিভাবে কাজ করবেন?

কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং করবেন?


ফ্রিল্যান্সিং করার জন্য আপনার জন্য বিভিন্ন অনলাইন মার্কেটপ্লেস আছে।

তাদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য কিছু মার্কেটপ্লেসের নাম ও লিংক নিচে দেওয়া হলো:-

এখানে কাজ কী.কম (kajkey.com) একটি বাংলাদেশি মার্কেটপ্লেস।
কাজকী মার্কেটপ্লেস নিয়ে আমার সম্পূর্ণ পোস্ট আছে। যদি না দেখে থাকেন তাহলে নিচের লিংক এ ক্লিক করে দেখে নিন।


নিজের দক্ষতা কাজে লাগিয়ে অনলাইন থেকে আয় করুণ হাজার হাজার টাকা।


এসব মার্কেটপ্লেস এর মাধ্যমে আপনি বিভন্ন কাজ করতে পারবেন। তো ফ্রিল্যান্সিং কি সেটা জানলাম, কোথা থেকে কাজ পাব সেটাও জানলাম কিন্তু কি কজ করতে হবে?

কী কী কাজ করে ফ্রিল্যান্সিং করবেন?

কী কী কাজ করে ফ্রিল্যান্সিং করবেন সেটা বলাটা এক ধরণের ভুকামি 😉

কারণ, আপনি যে কাজ করবেন সে কাজের জন্যই অনলাইনে আপনার জন্য কাজ রয়েছে। যেমন:

এখানে তো মাত্র ১০ টি কাজ এর কথা বলেছি কিন্তু আপনি যদি কোন মার্কেটপ্লসে গিয়ে যদি ক্যাটাগরি দেখেন তাহলে দেখবেন কোন কোন ধরণের কাজ পাওয়া যায়।

আর মোবাইল দিয়ে ফ্রিল্যান্সিং করা সম্পর্কে আমার আরো একটি সম্পূর্ণ আর্টিকেল আছে। যদি না দেখে থাকেন তাহলে নিচের লিংক এ ক্লিক করে দেখে নিন।


মোবাইল দিয়ে কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং করবেন জানতে হলে পোস্টটি সম্পূর্ণ পড়ুন


এখন বলতে পারেন এতো ক্যাটাগরি আছে ভালো কথা কিন্তু সব ক্যাটেগরির কাজ কি মার্কেটে আছে?

উত্তর: হ্যাঁ অবশ্যই,
উদাহরণ সরূপ, ধরুন কেউ একটা ওয়েবসাইট তৈরী করবে, এখন ওয়েবসাইট তৈরী করার জন্য লাগবে একটি পারফেক্ট থিম লাগবে। তাহলে এখন ওয়েব ডেভেলপার এর কাজ পাওয়া গেল তার পর ওয়েবসাইট এর জন্য একটি পারফেক্ট লোগো এবং ব্যানার লাগবে তাহলে এখানে গ্রাফিক্স ডিজাইন এর কাজ পাওয়া গেল। তার পর ওয়েবসাইট তৈরী করার পর সেই ওয়েবসাইট কে সার্চ রেজাল্টে আনার জন্য এসইও করা অত্যন্ত প্রয়োজন, তাহলে এখানে এসইও এর কাজ পাওয়া গেলো। আর এসইও করতে হলে আর্টিকেল রাইটিং করতেই হবে। তাহলে এখানে আর্টিকেল রাইটার এর কাজ পাওয়া গেলো।

আর এভাবেই ক্রমাগত চলতেই থাকবে আর ফ্রিল্যান্সাররা কাজ পেতে থাকবে।
তো এতক্ষণ আপনারা অপেক্ষা করছেন যে ফ্রিল্যান্সিং করে কত টাকা আয় করা যায়?

ফ্রিল্যান্সিং করে কত টাকা আয় করা যায়?

ফ্রিল্যান্সিং করে আয় করার কোন ধরাবাঁধা নেই। কারণ এটা সম্পূর্ণ আপনার হাতে। আপনি যত বেশি কাজ করবেন তত বেশি টাকা পাবেন। আপনি যদি দৈনিক ৪-৫ ঘন্টা কাজ করেন তাহলে প্রতিমাসে ৬০-৭০ হাজার টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

সত্যি কথা বলতে আমি এমনও মানুষ দেখেছু যে ফ্রিল্যান্সিং করে প্রতি বছর লক্ষ ডলার ইনকাম করেন। কী বিশ্বাস হচ্ছে না। ১ লক্ষ ডলার প্রতি বছর মানে বাংলাদেশি টাকায় প্রতি মাসে প্রায় সাড়ে ৬ লক্ষ টাকা।
আবার এমনও মানুষ যারা প্রতি মাসে ফ্রিল্যান্সিং করে প্রায় ৬-৭ ডিজিটের উপর ইনকাম করেন।

তো কী মনে হয়?

তো আপনি যদি সত্যি ফ্রিল্যান্সিং করতে চান তাহল আপনার জন্য নিচের কিছু কথা।

নতুন ফ্রিল্যান্সারদের জন্য উপকারী কিছু কথা

ফ্রিল্যান্সিং করে বেশি টাকা আয় করা যায় শুনে অনেকেই কাজ না শিখে বিভিন্ন মার্কেটপ্লেসে একাউন্ট খুলে উল্টো পাল্টো বিড করে

এতে করে বিদেশি ক্লাইন্টরা বাংলাদেশি মানুষদের কাজ দেওয়া বন্ধ করে দিয়েছে। তাই আপনাদের কাছে আমার বিশেষ নিবেদন এই যে আপনি সম্পূর্ণ এক্সপার্ট না হয়ে মার্কেটপ্লেসে একাউন্ট খুলে শুধু শুধু বাংলাদেশের নাম খারাপ করবেন না।

কারণ আপনার একটা স্পাম একাউন্ট এর কারণে হাজার হাজার ফ্রিল্যান্সার এর বদনাম হচ্ছে।

এক্ষেত্রে সুন্দরভাবে ধৈর্যধরে কাজ শিখে অফলাইনে দু একটা কমপ্লিট করে তার পর মার্কেটপ্লেসে একাউন্ট করুণ।

এতে আপনার কাজের প্রতি যেমন ভয় তাও দূর হবে তেমন সুন্দরভাবে কাজ ডেলিভারি করে ভালো রিভিউ ও পাবেন ও অনলাইন জগতে বাংলাদেশের নামও খারাপ হবে না।

8 months ago (11:28 pm) 1344 views
Report

About Author (761)

JS Masud
Administrator

Quran is only medicine of heart. and remember Allah is very powerful.

Leave a Reply

You must be Logged in to post comment.

Related Posts

Copyright © WizBD.Com, 2018-2019