Search Any Post Of WizBD.Com
 HomeEducational Guidelinesশিক্ষায় আগ্রহ তৈরি হলে কেমন হয়? নিজেই তৈরি করুন শিক্ষায় আগ্রহ!

শিক্ষায় আগ্রহ তৈরি হলে কেমন হয়? নিজেই তৈরি করুন শিক্ষায় আগ্রহ!

গণিতে ছিলাম দুর্বল তবে বিজ্ঞানে মোটামুটি জ্ঞান ছিল। গণিতের নাম শুনতেই ভয় পেয়ে যেতাম। আমার লেখাটা দেখে হয়তো বুঝেছেন আমি এখন তেমন দুর্বল নই। হ্যাঁ কথাটা সেরকমই। পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র ছিলাম। বাড়িতে একজন স্যার আসত পড়াতে। স্যারের পড়ানো আমার খুবই ভালো লাগত। কারণ তার পড়ানো প্রতিটা জিনিসই ছিল আমার মনের মতো। দ্রুতই তার পড়ানোর ফলে নিজেই অনেক কঠিন কঠিন অঙ্ক করতে শিখে গেলাম। বিষয়টি আমার কাছে জাদুর মতো ছিল। আপনরা চাইলেও ভালো করতে পারবেন। যদি নিচে দেওয়া নিয়ম মানেন। ↓

→::শিক্ষার উপকরণ::

আমাদের সবার প্রথমে শিক্ষা উপকরণ প্রয়োজন। কারণ শিক্ষার প্রথম ধাপই হচ্ছে এই উপকরণ। যার উপকরণ নাই তার কিছুই নাই। এটা হতে পারে বই কিংবা অনলাইনের শিক্ষামূলক ভিডিও বা একজন ভালো শিক্ষক।

আপনার প্রধান কাজ হলো শিক্ষা উপকরণ থেকে প্রাপ্ত তথ্যকে নিজের আগ্রহের তালিকায় রাখা। যেমন- আপনি যদি বই থেকে একটা পড়া পড়তে পড়তে পান তাহলে সেটা নিয়ে আরো আগ্রহের সাথে জানবার চেষ্টা করুন। না পারলেও তেমন সমস্যা হবে না। কারণ সেটা জানতে চাইবার এই আগ্রহ আপনাকে নতুন এক দিগন্ত এনে দিবে। ধরুন- আপনি বই পড়ে পেলেন – ১০ মি.লি সমান ১ সে.লি তাহলে “১০০ মি.লি সমান কত হবে? ” এই ধরণের প্রশ্নের উত্তর খুজতে গেলে আপনি অনেক অনেক তথ্য হাতের সামনে পেয়ে যাবেন। সেগুলো হাতে পেলেন ভালো, তবে সেগুলো বর্জ্য পদার্থ ভেবে আবার ফেলে দিবেন না যেন! এটা আপনার জন্যই শ্রেষ্ঠ তথ্যে উপহার। যা আপনাকে ভবিষ্যতে এগিয়ে নিয়ে যেতে সাহায্য করবে।

মাথায় রাখা ভালো একটা জিনিস যত পড়বেন ততই মাথায় ভালো থাকবে। আর পড়লেই আগ্রহ তৈরি হবে। সেটা হতে পারে ইউটিউব ভিডিও বা কোন বই যা দ্বারা আপনি আপনার জানার আগ্রহ মেটাতে পারেন। যে বিষয়ে আপনি বেশি দক্ষ সেটা আপনার আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে দিবে। খেয়াল করেছেন কিনা? জানিনা আপনি চাইলেই কিন্তু কোন বিষয়ে অনুশীলন করে দক্ষ হয়ে উঠতে পারেন!

→ডিজিটাল উপায়ে গণিত চর্চা করে ফেলুন

আপনি চাইলেই কিন্তু তৈরি করতে পারেন একটি ডিজিটাল পড়াশোনার প্লাটফর্ম। সেটা হতে পারে ফেসবুক গ্রুপ, ইউটিউব চ্যানেল অথবা হতে পারে গুগল ফর্ম ব্যাবহার করে নতুন এক শিক্ষার জায়গা। যেখানে নেই কোন অতিরিক্ত পড়ার চাপ। নেই পড়া না পাড়ার অপমানের ভয়। আছে আনন্দিত হয়ে পড়ার অভিজ্ঞতা। গুগল ফর্ম এখানে আপনাকে দলীয়ভাবে একটা পড়া শেষ করাতে সাহায্য করবে। কিভাবে করবে সেটা আপনি অনেক ইউটিউব ভিডিও আছে তা থেকে দেখে নিবেন। গণিতের ক্ষেত্রে এটা ভিষণ কাজের একটি মাধ্যম।

→নোট বানিয়ে রাখুন

নোট বানানো অভিজ্ঞতা আমাদের সবার হয়ত নেই। আমরা বুঝিনা কোন অংক কিভাবে নোট করতে হবে। প্রথমে বলি প্রথমে গণিতের যত সূত্র আছে সব নোট করে রেখে দিবেন। বর্তমানে কাজে না দিলেও ভবিষ্যতে কোন এক সময় এগুলোই হবে আপনার হাতিয়া। সুত্র বুঝার কথায় আসলে নোট করে রাখলেই হবে না। তার বাস্তবিক ব্যাবহার করতে হবে আপনাকে। মানে আপনাকে তার যথাযথ ব্যাবহার করে সূত্র বুঝে নিতে পারেন। প্রয়োজন হলে সূত্রের সাহায্যে নিয়ে নানা রকম অঙ্ক করতে পারেন। কথাটা ছোট তবে কাজের হবে যখন এটা যথাযথ পালন করতে পারবেন।

→নিজেকে নিয়ে গবেষণা করুন

নিজেকে জানার একটা ভালো উপায় হলো নিজেকে নিয়ে গবেষণা করা। হু এটা কি বলে নিজেকে নিয়ে কি আমি গবেষণা করতে পারব? যতসব ভুল পরামর্শ। না এটা ভুল পরামর্শ নয়। তবে হ্যা আমরা চাইলেই কিন্তু নিজেদের নিয়ে গবেষণা করে আরো অনেক সুন্দর করে নিজেদের গড়ে তুলতে পারি। তো এবার কথা হলো এটা আপনি কিভাবে করবেন? পাঠক, পৃথিবীতে বিজ্ঞান আছে বলেই আমরা অনেক কিছু জানতে পারছি৷ ভাই আমি যদি বলি গবেষণার মতো সোজা কোন জিনিস হয় না। তবে আমার থেকে বড় গাধা আপনি খুজতে গেলেও পাবেন না। পাঠক, আজকাল অনেকে মনে করে বিজ্ঞান কত সোজা সারাদিন বৈজ্ঞানিক যন্ত্রপাতি নিয়ে ঘড়ে বসে থেকে দিন শেষে ‘ইউরেকা’ বললেই হয়ে গেল গবেষণা। হাহাহা, কি আরো কত কিছু যে ভাবে তা বলাটাও গাধার কাজের অন্তর্ভুক্ত বলতে পারেন। নিজেকে পর্যবেক্ষণ করুন, দেখুন কখন আপনি রাগ করেন,কখন আপনি খুশি হন,কখন আপনার ভালো লাগে না, কখন ভালোবাসা অনুভব হয়,আরো কতকি! যখন মন মেজাজে ভালো থাকবেন তখন আপনি পড়ার কাজটা করবেন। যখন রাগ রাগ ভাব তখন আপনার প্রিয় কোন কাজ করুন। দেখবেন এরকম চললে আপনার আগের থেকে আরো ভালো পড়া হবে। গণিতে ভালো হতে হলে এগুলোকে গুরুত্ব দেওয়া অবশ্যই উচিত। তাহলে বুঝলেন মন মেজাজে ভালো না থাকলে কোন কাজেই আপনি মন বসাতে পারবেন না। এই ক্ষেত্রে নিজেকে জানা যে কতটা জরুরি তা বললেও শেষ হবার উপায় নেই।

→শেষ কথা
গণিতে ভালো হতে হলে সর্বোচ্চ কাজ হলো সেই গণিত ভালোভাবে চর্চা করা। মাঝে মাঝে নিজেকে পরিক্ষার মাধ্যমে বুঝে নেওয়া কোথায় আবার সমস্যা। সমস্যা বুঝে নিতে গেলে আপনার কাজ হবে সেটার দ্রুত সমাধান করা। সমাধান করে বিষয়টি আবার চর্চা করে না ভুলার হাত থেকে রক্ষা পাওয়া।

1 month ago (10:15 pm) 400 views
Report

About Author (3)

EFTEKHAR NAEEM
Author

জ্ঞান পিপাসু, বিজ্ঞানের প্রেমিক

Leave a Reply

You must be Logged in to post comment.

Related Posts

Copyright © WizBD.Com, 2018-2019