Search Any Post Of WizBD.Com
 HomeEducational Guidelinesপরীক্ষায় দ্রুত লেখার জন্য অসাধারণ ৫টি টিপস

পরীক্ষায় দ্রুত লেখার জন্য অসাধারণ ৫টি টিপস

পরীক্ষা দিয়ে হল থেকে বেরিয়ে “ইস আরেকটু যদি সময় পেতাম” এমন অনেক আক্ষেপ আমাদের সবারই কম বেশি থাকে।কারণ পরীক্ষায় যেই টাইম টা বেঁধে দেয়া হয় সেই টাইমের ভিতরে আমাদের পরীক্ষা শেষ করতে হয়।অনেকে time management এর কারণে শেষ করতে পারে আবার অনেকে পারে না।তাই আমি আজ আপনাদের এমন ৫টি টিপস বলবো যেগুলোর এক বা একাধিক ফলো করে আপনি সফলতা অর্জন করতে পারবেন।

1. প্রশ্ন ভালোভাবে পড়া: পরীক্ষার হলে যখন প্রশ্ন দেয়া হয় তখন প্রথম 5 মিনিট হাতে রাখতে হয় প্রশ্ন ভালোভাবে পড়ার জন্য। এই সময়ে আপনাকে 3 টি কথা মাথায় রাখতে হবে ; ১.কয়টা প্রশ্নের মধ্যে কয়টা দিবো,২.কোন প্রশ্ন গুলা অনেক সহজ বা ৩.কোনগুলাতে অনেক অল্প সময় লাগবে।
তাহলে আপনি ভালোভাবে উত্তর দিতে পারবেন।

2. সময় ভাগ করে নেয়া: পরীক্ষায় পুরো উত্তর না দিতে পারার অন্যতম একটি কারণ হলো সময় ভাগ করে না নেয়া।আমরা প্রশ্ন পাওয়ার শুরুতেই প্রথম প্রশ্নের উত্তর গুলা অনেক বেশি সময় নিয়ে লিখি ,কিন্তু পরে যখন দেখি সময় নেই তাই শেষের দিকে উত্তর গুলা ভালোভাবে দিতে পারি না।তাই প্রথমেই আমাদের time management এর উপর খেয়াল রাখতে হবে যাতে সঠিক সময়ে সবগুলা প্রশ্নের উত্তর দিতে পারি।

3. সহজ থেকে কঠিন : সাধারণ তো যে প্রশ্ন গুলি আমরা ভালো পারি প্রথমে সেগুলার উত্তর দেয়াই বুদ্ধিমানের কাজ।যারা ক্লাসে সবসময় ফাস্ট হয় তারা প্রথমেই পরীক্ষায় প্রশ্ন পেলে খুঁজে বের করে কোনটা সহজ ,কোনটা আমার সময় কম লাগবে। এক্ষেত্রে যারা প্রশ্ন তৈরি করে তারাও একটি টেকনিক ফলো করে যেমন প্রথম বা শেষের দিকে কয়েকটি প্রশ্ন সহজ দেয় যাতে পরিক্ষার্থী রা এগুলা উত্তর করে ।তাই তোমার সহজ প্রশ্ন গুলি আনসার করতে হবে। এক্ষেত্রে তোমার সময় ও বাজবে যাতে পরে তুমি কঠিন প্রশ্ন গুলি খুব চিন্তা করে দিতে পারো।

4.হাতের লেখা অনুশীলন: আমরা পরীক্ষা আসলে শুধু পড়ি কিন্তু লেখি না। এতে যা হয় ,পরীক্ষার সময় আমাদের হাত ব্যথা হয়ে যায়,আবার অনেক সময় লেখা বাঁকা হয়ে যায়। আবার অনেক জনকে দেখা যায় যে,হাতের লেখা দ্রুত না হওয়ার কারণে সব গুলার উত্তর দিতে পারে না।তাই যখন পরীক্ষার প্রস্তুতি নিবো তখন যেনো পড়ার পাশাপাশি লেখার অনুশীলন ও করি তাহলে আমাদের হাত ও ব্যথা হবে না আর আমরা সব প্রশ্নের উত্তরও দিতে পারবো।

5.দুশ্চিন্তাকে না বলো : পরীক্ষার হলে কোনোরকমই দুশ্চিন্তা করা যাবে না।অনেক সময় দেখা যায় কি একটি প্রশ্নের উত্তর খারাপ হলে অনেক চিন্তা হয়।তার কারণে বাকি প্রশ্নের উত্তর গুলি খারাপ হতে থাকে ।তাই কোনো উপায়ই এই দুশ্চিন্তা করা যাবে না। Keep Calm & Stay cool.

আজ এ পর্যন্তই থাক।সবার জন্য শুভকামনা রইলো ।

6 months ago (1:13 pm) 696 views
Report

About Author (74)

Author

নিজে শিখুন এবং অন্যকে শিখতে সাহায্য করুন

Leave a Reply

You must be Logged in to post comment.

Related Posts

Copyright © WizBD.Com, 2018-2019