Search Any Post Of WizBD.Com
 HomeDigital Marketingডিজিটাল মার্কেটিং কি এবং এটা কিভাবে সঠিকভাবে শিখে নিয়ে আপনার ক্যারিয়ার গড়ে তুলবেন

ডিজিটাল মার্কেটিং কি এবং এটা কিভাবে সঠিকভাবে শিখে নিয়ে আপনার ক্যারিয়ার গড়ে তুলবেন

বর্তমান বিশ্ব এখন প্রযুক্তির তালে ভাসছে।তথ্যপ্রযুক্তির যুগে আমরা এখন ঘরে বসে পৃথিবীর বিভিন্ন তথ্য জানতে পারছি ।ডিজিটাল মার্কেটিং শিখে নিয়ে একটি পরিপূর্ণ ক্যারিয়ার শুরু করার পূর্বে যেই বিষয়গুলো
আপনাকে জেনে নিতে হবে সেগুলো হলঃ

১। ডিজিটাল মার্কেটিং কি?
২। এইটার ক্যারিয়ার কেমন?
৩। ডিজিটাল মার্কেটিং কিভাবে করতে হয়?
৪। এই দক্ষতা টিকে কিভাবে কাজে লাগিয়ে ইনকাম করতে হয়

তো চলুন কথা না বাড়িয়ে শিখে নেই ডিজিটাল মার্কেটিং সম্পর্কে একটি পরিপূর্ণ গাইডলাইন এবং এক এক করে উপরের সব গুলো প্রশ্নের উত্তর জেনে নেই

ডিজিটাল মার্কেটিং কি?

মার্কেটিং মানেই হচ্ছে প্রচার প্রচারণা, এবার সেটা যেকোনো কিছু নিয়েই হতে পারে।
আমরা যেখানেই যাই না কেন, সব জায়গায়তেই বিজ্ঞাপন দেখতে পাই। যেমনঃ টেলিভিশন অনুষ্ঠান, পত্রপত্রিকা, রাস্তার বিলবোর্ড, লিফলেট, গাড়ির বডিতে এবং আরও অন্যান্য উপায়ে।এই বিজ্ঞাপনগুলোর জন্য সঠিক ব্যানার/গ্রাফিক্সের ব্যাবহার করা,
পাশাপাশি সঠিক মানুষ বিজ্ঞাপন গুলো দেখছে কিনা,
দেখলে কত মানুষ পণ্য/সেবা কিনে নিচ্ছে
ইত্যাদি বিষয়গুলোতে প্রায় সব ধরনের ছোট থেকে মাঝারী এবং বড় কোম্পানিগুলোর দক্ষ
জনবলের প্রয়োজন হয়ে থাকে।
পাশাপাশি যারা উদ্যোক্তা হতে চায়, তাঁদেরতো এই দক্ষতাটি থাকা অনেকটাই বাধ্যতামুলক বর্তমান সময়ে।
তাই এই ইন্ডাস্ট্রিতে কাজের প্রচুর সুযোগ রয়েছে। সবচেয়ে মজার ব্যাপার হচ্ছে,
এই কাজটি শিখে নেয়ার জন্য কোন পূর্ববর্তী অভিজ্ঞতা বা সার্টিফিকেট যে থাকতেই হবে এমন কোন কথা নেই ।
এখন আমরা একটি আধুনিক যুগে বসবাস করছি।
যেখানে টেকনোলজি আমাদের জীবনকে অনেকটাই সহজ করে দিয়েছে ( ফেইসবুক, ভাইবার, ইমো, WhatsApp )।
পুরো পৃথিবীতেই এই মাধ্যমগুলো মানুষের জীবনকে অনেকটাই সহজ করে দিয়েছে, বিশেষ করে যোগাযোগের ক্ষেত্রে।

যুগের সাথে তাল মিলিয়ে মার্কেটিং পদ্ধতিতেও অনেক দারুণ! পরিবর্তন এসে গিয়েছে।
আপনার মত কোটি কোটি মানুষ এই ফেইসবুক, বিভিন্ন ওয়েবসাইট, ভাইবার
এবং আরও যে অন্যান্য প্লাটফর্ম গুলো রয়েছে, সেগুলো প্রতিনিয়ত ব্যাবহার করছে।
তাই এই প্লাটফর্মগুলো ছোট, মাঝারী এবং বড় কোম্পানিগুলোর জন্য হয়ে উঠেছে লোভনীয় একটি উপায় ( বিলবোর্ড, গাড়ির বডির মত ),
পণ্য বা সেবা প্রচার করার মাধ্যমে বেশি থেকে বেশি আয় করে নেয়ার।
এই প্লাটফর্মগুলোর ( ফেইসবুক, ইউটিউব, বিভিন্ন ওয়েবসাইট, ভাইবার ইত্যাদি )
মাধ্যমে পণ্য বা সেবার প্রচার-প্রচারণা করাটাই হচ্ছে ডিজিটাল মার্কেটিং।

মানুষ যতই ইন্টারনেটের সংযোগে আসছে ততোই ডিজিটাল মার্কেটিং দক্ষতার চাহিদা আকাশ চুম্বী হচ্ছে।
আপনি দক্ষতাটি ভালো করে শিখে নিয়ে বিভিন্ন কোম্পানিকে তাঁদের পণ্য/সেবা প্রচার করতে সাহায্য করার মাধ্যমে দারুণ!
একটি ইনকাম সোর্স বের করে ফেলতে পারেন।
পাশাপাশি আপনার নিজের কোন বিজনেস শুরু করতে চাইলে শেখানেও দক্ষতাটি কাজে লাগিয়ে ফেলতে পারবেন। মানে কোন দিকেই লস নেই 🙂

ডিজিটাল মার্কেটিং কিভাবে করতে হয়?
ডিজিটাল মার্কেটিং ২টি উপায়ে করা হয়। ১মঃ পেইড মেথড, ২য়ঃ ফ্রি মেথড।

আপনি জেনে অবাক হয়ে যাবেন, ওই প্লাটফর্মগুলো ( ফেইসবুক, ইউটিউব, ওয়েবসাইট, মেসেজিং অ্যাপস ইত্যাদি ) অলরেডি পণ্য/সেবা প্রচার-প্রচারণা করার সব রকম টুলস দিয়ে দিয়েছে যা কোম্পানিদের মারাত্মকভাবে কাজে লাগে।
আপনাকে শুধুমাত্র সেই সফটওয়্যার বা টুলস গুলোর ব্যাবহার সঠিকভাবে শিখে ফেলতে হবে।
শিখে ফেলার পর সেই টুলসগুলো ব্যাবহার করার মাধ্যমে আপনার নিজের বা অন্যের কোম্পানির পণ্য-সেবা গুলো বেশি থেকে বেশি প্রচার এবং বিক্রি করে দিতে সাহায্য করতে হবে।
অবশ্যই এটা আপনি ৭ দিন বা ১ মাসেই শিখে ফেলতে পারবেন না, যেহেতু এটা কোন শর্টকাট ক্যারিয়ার না।
তাই একটি টাইম বেধে ভালো করে কাজটি শিখে নিতে পারলেই বৈধভাবে আপনার ইনকাম করার একটি দুয়ার খুলে যাবে।
এই দক্ষতাটিকে কিভাবে কাজে লাগিয়ে ইনকাম করতে হয়?
খুবই জরুরী একটি বিষয়, মনোযোগ দিয়ে পড়ুন।
আপনি যখন দক্ষতাটি শিখে নিবেন,
তখন আপনি নিজেই একটি ডিজিটাল মার্কেটিং এজেন্সি খুলে বিভিন্ন কোম্পানিকে তাঁদের পণ্য/সেবা প্রচার-প্রচারণায় সাহায্য করে ইনকাম করে নিতে পারেন।
তবে তার জন্য আপনার অনলাইনে ডলারের প্রয়োজন হবে।
কারন ওই প্লাটফর্ম গুলোতে মার্কেটিং করতে হলে ডলারের প্রয়োজন, বিশেষ করে পেইড মেথডে।
যেটা বেশির ভাগ মানুষের পক্ষেই সম্ভব নয়,
যেহেতু বাংলাদেশসহ এশিয়ার অনেক দেশ থেকেই লোকাল কারেন্সিকে অনলাইন ডলারে কনভার্ট করা যায় না।
এই ক্ষেত্রে অনলাইন প্রোফেসনালরা কিছুটা এগিয়ে এবং তাঁদের জন্য সুবিধা। কারন তাঁদের কাছে ডলার থাকে যা তারা বিভিন্ন অনলাইন মার্কেটপ্লেস থেকে ইনকাম করে থাকে।
টেনশন? চিন্তার কিছু নেই, সমস্যা থাকলে তার সমাধানও আছে 🙂
যদি আপনার কাছে ডলার না থাকে, চিন্তার কিছু নেই। তারপরও আপনি এই দক্ষতাকে কাজে লাগিয়ে বাংলাদেশের বিভিন্ন কোম্পানিকে সাহায্য করতে পারেন (চাকুরী বা কন্ট্রাক্টে)।
ডলার আপনার কোম্পানি মেনেজ করে দিবে।
আপনি শুধু টুলসগুলো সঠিকভাবে ব্যাবহার করে তাঁদের পণ্য/সেবা বেশি থেকে বেশি মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে সাহায্য করবেন।
২টি উপায়ই আপনার কাছে আছে। ডিজিটাল মার্কেটিং দক্ষতাটি কাজে লাগিয়ে আপনি যেমন নিজের বিজনেসে কাজে লাগাতে পারেন, ঠিক তেমন আবার আপনার পছন্দের কোম্পানিটিতে জয়েন করে তাঁদেরকে সাহায্য করার মাধ্যমেও ইনকাম করে নিতে পারেন।
যত বেশি আপনি দক্ষ, ততো বেশিই আপনার রেট (ইনকাম)। তাই দ্রুত কাজটি শিখে নেয়ার চেষ্টা করুন।
কাজটি কোথা থেকে শিখবো?
ডিজিটাল মার্কেটিং শেখার জন্য ইউটিউব দেখতে পারেন, বিভিন্ন ব্লগে আর্টিকেল পড়তে পারেন
(ঠিক এখন যেমন পড়ছেন), এছাড়াও কোন দক্ষ মেন্টরের সাহায্য নিতে পারলে ভালো, এতে দ্রুত শিখে ফেলবেন।
আমি কি শেখা শেষ করার সাথে সাথেই কাজ করতে পারবো?
না! ডিজিটাল মার্কেটিং শেখা শেষ করে আপনি শিখে নিতে পারবেন কাজটি কিভাবে করতে হয়।
তারপর বাসায় বসে ওই বিষয়গুলো নিয়ে আরও নিজে নিজেই কাজ বা অনুশীলন করার মাধ্যমে দক্ষতা বাড়িয়ে নিতে হবে, যেন কোম্পানিগুলো আপনাকে বেশি থেকে বেশি ইনকাম দেয়।
পাশাপাশি আপনার নিজের কোম্পানির জন্য কাজ করলেতো ভালো করে শিখে নেয়ার কোন বিকল্প নেই, শিখতেই হবে।

4 months ago (4:27 pm) 516 views
Report

About Author (71)

Author

নিজে শিখুন এবং অন্যকে শিখতে সাহায্য করুন

Leave a Reply

You must be Logged in to post comment.

Related Posts

Copyright © WizBD.Com, 2018-2019