Search Any Post Of WizBD.Com
 HomeAndroid Tipsদেখে নিন মোবাইলের ব্যাক কভার ব্যবহারের কিছু ক্ষতিকর দিক যা আপনার মোবাইলের জন্য অত্যন্ত বিপদজনক।

দেখে নিন মোবাইলের ব্যাক কভার ব্যবহারের কিছু ক্ষতিকর দিক যা আপনার মোবাইলের জন্য অত্যন্ত বিপদজনক।

আসসালামু আলাইকুম

আশাকরি সবাই ভালো আছেন।
সবাই ভালো থাকেন ভালো রাখেন এই প্রত্যাশাই করি সব সময়।
বন্ধুরা আজ আমি আপনাদের সাথে মোবাইলের ব্যাক কভারের কিছু ক্ষতিকর দিক নিয়ে কথা বলব।
যা আপনার মোবাইল ব্যবহারের জন্য অনেক হেল্পফুল হবে।

মোবাইলের ব্যাক কভার চিনি না এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া যাবে না। মোবাইলককে বড় বড় আঘাত থেকে রক্ষা করতে এই ব্যাক কভার ব্যবহার। মোবাইল ফোন সুন্দর সুরক্ষিত রাখতে রাখতে অনেকেই ব্যাক কভার ব্যবহার করি। বাজারে বিভিন্ন মডেল ও ডিজাইনের ব্যাক কভার পাওয়া যায়। সাধারণত মোবাইলে দুই ধরনের কভার থেকে 1 back cover আর 2 ফ্লিপ কভার। এছাড়াও আছে চামড়ার আবার আর প্লাস্টিকের কভার। এগুলো আবার ফুল কভারের নকশা পুতি পাথর দিয়ে নকশা করা। আরও বিভিন্ন ধরনের নকশা দিয়ে সুন্দর ও আকর্ষণীয় করে তোলা হয় ব্যাক কভারগুলোকে। অনেক ক্ষেত্রে আবার কেউ কেউ পোশাকের রঙের সাথে মিলিয়ে ব্যাক কভার ব্যবহার করে। তবে ডিজাইন, নকশা যাই হোক ব্যাক কভারের মূল উদ্দেশ্যই হচ্ছে মোবাইলকে সুরক্ষিত রাখা।
বিখ্যাত বিজ্ঞানী নিউটনের মতে প্রত্যেক ক্রিয়ারই সমান এবং বিপরীতমুখী প্রতিক্রিয়া আছে।
ঠিক তেমনি আমরা মোবাইল ফোনের ব্যাক কভার ব্যবহার করে থাকি ভালোর জন্য কিন্তু তারও কিছু খারাপ দিক আছে তা আমরা জানি না। তো আজকের এই পোস্টের মাধ্যমে আমি আপনাদের সামনে ব্যাক কভারের কিছু ক্ষতিকর দিকগুলো তুলে ধরব।
তো চলুন শুরু করা যাক।

প্রথম:-ফোন টেম্পারেচার

প্রথমেই ফোনের টেম্পারেচার নিয়ে কথা বলতে চাই। আমরা যারা স্মার্ট ফোন ব্যাবহার করে থাকি তারা সবাই প্রায় জানি ফোন অনেক সময় ব্যবহার করার পর গরম হয়ে যায় এবং এটা খুব কমন সমস্যা তাই এটাকে আমরা সমস্যা মনে করিনা। আবার অনেকেই ব্যাক কভার ব্যবহার করার কারনে মোবাইল গরম হয়েছে কিনা তা বুঝতে পারিনা। আবার ব্যাক কভার ব্যবহার করার কারণে মোবাইলের তাপমাত্রা বের হতে পারে না, বাহিরের বাতাস ও মোবাইলে সংস্পর্শে আসে না। তাই ব্যাক কভার ব্যবহার করলে মোবাইলের temperature একটু বেশি বেড়ে যায়। আপনি চাইলে টেম্পারেচার মিটার দিয়ে দেখতে পারেন এবং ব্যাক কভার ছাড়া ও ব্যাক কভার সহ temperature মেপে দেখতে পারেন। আর মাত্রা অতিরিক্ত temperature হলে কি হতে পারে তা নিচের ছবিগুলো দেখলেই আপনারা বুঝতে পারবেন

দ্বিতীয়:- কল ড্রপ।

ফোনে কথা বলার সময় কল ড্রপ খুবই বিরক্তিকর। এতই বিরক্তি লাগে যে মন চায় ফোন তুলে আছাড় মারি। যাইহোক যাদের বারবার কল ড্রপ হয় তারা দেখুন ফ্লিপ কাভার ব্যবহার করছেন কিনা। কি শুনে অবাক লাগছে। হ্য অবাক হওয়াটাই স্বাভাবিক ফ্লিপ কভার এ থাকা ম্যাগনেট কল ড্রপ করে। অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমের কমিউনিটিতে অনেকেই কল ড্রপ নিয়ে কমেন্ট করেছেন। যা নিচের লিংক এ ক্লিক করে আপনারা প্রুফ দেখতে পারেন।
https://www.androidauthority.com/community/threads/problems-with-magnetic-case-covers.27160/
এমন কি ফোনের ট্যাচেও অনেক effect পরে। অনেকেই হয়ত লক্ষ করেছেন ফ্লিপ কভারের যেদিকে magnet থাকে সাদিকের touch একটু কমই কাজ করে। আবার অনেকেই বলে থাকেন magnetic flip কভার ফোনের sensor নষ্ট করে থাকে। ব্যাক কভার আমরা ব্যবহার করি মূলত আঘাত ফোনকে থেকে বাঁচিয়ে রাখার জন্য। আবার অনেকেই খেয়াল করেছেন যে এই ব্যাক কভার ব্যবহার করলে অনেক দুলাবালি ব্যাক কভারে সাথে লেগে থেকে যায়। আবার অনেক সময় ব্যাক কভারের সাথে ঘষা লেগে ফোনেও দাগ লেগে যায়। আর প্লাস্টিক এর back cover বারবার খোলা এবং লাগানোর ফলে ফোনের চারদিকে দাগ পড়ে যায়। তাহলে দেখা যায় যে দাগ থেকে সুরক্ষার জন্য ব্যাক কভার ব্যবহার করছি আবার সেই ব্যাক কভারই ফোনে দাগ ফেলছে। ব্যাপারটা অনেকটা এরকম (খাল কেটে কুমির আনার মত)
স্যামসাং এবং যাদের মোবাইলে backside প্লাস্টিকের তারা এই সমস্যাটি বেশ ভালো করে লক্ষ্য করেছেন। এখন আমাদের মনে প্রশ্ন জাগতে পারে দাগ থেকে সুরক্ষার জন্য কি করতে পারি? এর জন্য আমি বলতে পারি মোবাইলের কালার অনুযায়ী মোবাইলের ব্যাক সাইডে কার্বন ফাইবার স্টিকার ব্যবহার করতে পারেন। এতে করে ছোটখাটো আঘাত থেকে ও দাগ পরা থেকে রক্ষা করতে পাবেন। আর এই স্টিকার আপনি যখন তখন খুলে ফেলতে পারবেন। মার্কেটে এখন বিভিন্ন মডেলের ফোনের জন্য এসব স্টিকার পাওয়া যায়। মোবাইলের ব্যাক সাইটে carbon fiber sticker কিভাবে লাগাবেন তা আপনি ইউটিউবে একটি ভিডিও দেখলেই বুঝতে পারবেন। আর ফোনের চারদিক সুরক্ষার জন্য বাম্পার পাওয়া যায় যা ফোনের সাইডকে বেশ হাই লেভেলের আঘাত থেকে রক্ষা করতে পারবে। আর স্কিনের জন্য আছে screen protector.
তাই ব্যাক কভার ব্যবহার করা আর না করা সম্পূর্ন আপনার উপর।
উপরে যে সকল সমস্যার কথা বললাম সে সকল সমস্যা যদি আপনার সাথে না হয়ে থাকে তাহলে আপনি ব্যাক কভার ব্যবহার করতে পারেন আর যদি এসব সমস্যা হয় আপনার সাথে হয়ে থাকে তাহলে আজই ব্যাক কভার ব্যবহার করা বন্ধ করুন।
.
তো আশাকরি পোষ্টটি সবার কাছে ভালো লেগেছে। কেমন লাগল তা অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন।
আর কোন সমস্যা হলে:-

সবাও ভালো থাকেন সুস্থ থাকেন আল্লাহ হাফেজ।

3 months ago (4:35 pm) 1594 views

About Author (347)

wavatar
Administrator

{কোনো সময় বলনা যে তুমি কিছু জান না।}_________{You should never say you don't know.}

Leave a Reply

You must be Logged in to post comment.

Related Posts

Copyright © WizBD.Com, 2018